অতিরিক্ত উত্তেজনা কমানোর উপায়

1,500.00৳ 

ফোন করুন: 01751358526

> প্রত্যেকটি  চেক করা এবং কোয়ালিটি সম্পন্ন ।
>>  আমরা সবচেয়ে কম দামে দিতে পারি
>> সারাদেশে হোম ডেলিভারির মাধ্যমে পৌঁছে দেয়া হয়ে থাকে ।

>> ক্যাশ অন ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে ১১০ টাকা ! (পরিবর্তনীয়)

842 in stock

Description

অতিরিক্ত উত্তেজনা কমানোর উপায় অতিরিক্ত উত্তেজনা বা টেনশন মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটি উদ্বেগ, হতাশা, ঘুমের সমস্যা, মাথাব্যথা, পেট ব্যথা ইত্যাদি সমস্যার কারণ হতে পারে। অতিরিক্ত উত্তেজনা কমাতে হলে নিম্নলিখিত উপায়গুলি অনুসরণ করা যেতে পারে: আরো পড়ুন: ছেলেদের মেয়েদের কন -ডম গুপ্ত –  স্থান মেয়েদের পু -শি  কিনতে এখনই কিনুন

অতিরিক্ত উত্তেজনা কমানোর উপায়

  • নিজের চাহিদা ও ক্ষমতার মধ্যে সামঞ্জস্য বজায় রাখুন। আপনি যা করতে পারেন না বা যা আপনার জন্য ভালো না তা চাপের কারণ হতে পারে। তাই নিজের ক্ষমতা ও চাহিদা সম্পর্কে সচেতন থাকা এবং সে অনুযায়ী কাজ করা জরুরি।
  • সময়ের সঠিক ব্যবহার করুন। কাজের চাপ কমানোর জন্য সময়ের সঠিক ব্যবহার করা জরুরি। কাজের জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করুন এবং সেই সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করার চেষ্টা করুন। বাকি সময়টা পরিবার, বন্ধুবান্ধব, বিনোদন ইত্যাদির জন্য রাখুন।
  • প্রয়োজনে সাহায্য নিন। আপনি যদি একা অতিরিক্ত উত্তেজনা মোকাবেলা করতে না পারেন তাহলে একজন বন্ধু, পরিবারের সদস্য বা মানসিক স্বাস্থ্য পেশাদারের সাহায্য নিতে পারেন।

এছাড়াও, নিম্নলিখিত উপায়গুলি অনুসরণ করেও আপনি অতিরিক্ত উত্তেজনা কমাতে পারেন:

  • নিয়মিত ব্যায়াম করুন। ব্যায়াম স্ট্রেস হরমোন হ্রাস করে এবং সুখী হরমোন নিঃসরণ করে। তাই নিয়মিত ব্যায়াম করা অতিরিক্ত উত্তেজনা কমাতে সাহায্য করে।
  • প্রয়োজনীয় পরিমাণে ঘুমান। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে শরীর ও মন ক্লান্ত হয়ে পড়ে এবং উত্তেজনা বাড়ে। তাই প্রতি রাতে ৭-৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন।
  • ধ্যান বা যোগব্যায়াম করুন। ধ্যান বা যোগব্যায়াম শরীর ও মনকে শান্ত করতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত ধ্যান বা যোগব্যায়াম করার অভ্যাস করুন।
  • পছন্দের কাজ করুন। আপনি যা করতে ভালোবাসেন তা করলে মন ভালো থাকে এবং উত্তেজনা কমে। তাই অবসর সময়ে পছন্দের কাজ করার চেষ্টা করুন।
  • স্বাস্থ্যকর খাবার খান। অস্বাস্থ্যকর খাবার খেলে শরীরে ক্ষতিকর পদার্থ জমে যায় এবং উত্তেজনা বাড়ে। তাই স্বাস্থ্যকর খাবার খান।
  • পর্যাপ্ত পানি পান করুন। পানি শরীরকে হাইড্রেটেড রাখে এবং শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন বের করে দেয়। তাই প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন।

উল্লেখ্য, অতিরিক্ত উত্তেজনা যদি দীর্ঘস্থায়ী হয় তাহলে একজন মানসিক স্বাস্থ্য পেশাদারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “অতিরিক্ত উত্তেজনা কমানোর উপায়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *